ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আজ মঙ্গলবার রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার বর্ণাঢ্য কর্মসূচি পালন করেছে সংগঠনটি। বাংলা, বাঙালির স্বাধিকার অর্জনের লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনায় ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের জন্ম হয়।
সংগঠনটির ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণাঢ্যভাবে পালন করতে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সংসদের পক্ষ থেকে ৫দিনব্যাপি বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সকল সাংগঠনিক কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
সকাল ৮টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বর বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি এবং কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের প্রতিনিধি দল টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ, সকাল ৯টায় কার্জন হলে কেক কাটা এবং বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন ও আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের সামনে থেকে এই শোভাযাত্রা শুরু হয়।
শোভাযাত্রা পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও শোভাযাত্রার উদ্বোধন ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।
এর আগে শোভাযাত্রা উপলক্ষ্যে দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন হলে ছাত্রলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তর, মহানগর দক্ষিণ, ঢাকার বিভিন্ন কলেজ ছাত্রলীগ সমবেত হতে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে।
সমাবেশে উদ্বোধনী বক্তব্যে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ছাত্রলীগ একটি সৃষ্টিশীল ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কখনও কোনো অগণতান্ত্রিক সরকারকে বাংলাদেশের জনগণের মাথার ওপর জগদ্দল পাথর হয়ে বসতে দেয়নি। এই ছাত্রলীগ মানবিক সংগঠনে পরিণত হয়েছে। যে সময় মা তার সন্তানের কাছে যায় না, সন্তান যখন তার পিতার পাশে দাঁড়ায় না, সেই মুহুর্তে ছাত্রলীগ তাদের সকল কাজ করে দিয়েছে।
তিনি বলেন, সকল ষড়যন্ত্রকে ছিন্নভিন্ন করে ছাত্রলীগ ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করছে। ছাত্রলীগ আগামীদিনেও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকল অশুভ শক্তির ষড়যন্ত্রকে ছিন্নভিন্ন করে একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করবে।
সমাবেশে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ ও আ ফ ম বাহা উদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আফজাল হোসেন, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনসহ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত ছিলেন।
শোভাযাত্রাটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শাহবাগ-মৎস ভবন-কাকরাইল-পল্টন হয়ে গুলিস্থান বঙ্গবন্ধু এভিনিউ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
এর আগে সকালে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ধানমন্ডিস্থ বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.