মানুষের পাশে দাঁড়ানোই কামরানের মৃত্যু ডেকে আনলো!

করোনাকে ভয় পাননি তিনি কখনোই। বাঘা বাঘা অনেক নেতাই যখন করোনার ভয়ে বাসায় গুটিসুটি মেরে বসে আছেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান তখন লকডাউনের কারণে অসহায় হয়ে পড়া মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার পৌঁছে দিয়েছেন। এবার আর মেয়র পদে ছিলেন না। কিন্তু তারপরও স্বার্থপর তিনি হতে পারেননি। মানবসেবা করতে যে পদের দরকার হয় না। সেটাই প্রমাণ করে যাচ্ছিলেন। খেঁটে খাওয়া অসহায় মানুষের দিকে মানবিক হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন কামরান। সেটাই বোধহয় তার জন্য কাল হয়ে দাঁড়ালো। দল মত নির্বিশেষে সবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দিয়ে এসেছিলেন। তার স্ত্রী সিলেট মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসমা কামরানও স্বামীর মতোই মানুষকে সাহায্য সহযোগিতা করতে নির্ভয়ে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। করোনাকে পরোয়া না করে তাদের এই ছুটে চলার ফলেই হয়তো দুজনেই করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন।

আসমা কামরান এখন সুস্থ হওয়ার পথে। কিন্তু কামরান আর বাঁচতে পারলেন না। করোনার কাছে হার মানতে হলো তাকে। আজ সোমবার ভোরে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) মারা গেছেন প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ। মানবহিতৈষী এই নেতার মৃত্যুতে কাঁদছে সিলেটবাসী। এ ক্ষতি যেন পূরণ হবার নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.