মোদির বাংলাদেশ সফরে চীন খুশি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরে সন্তোষ প্রকাশ করেছে চীন। ঢাকা সফররত দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপমন্ত্রী এইচই জিয়ো ইয়াজহু বলেন, বাংলাদেশ এবং ভারত দক্ষিণ এশিয়ার দুটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরে আমরা খুব খুশি। এই সফরের মধ্য দিয়ে শুধু বাংলাদেশ-ভারত না, এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাবে বলে আমরা আশাবাদী।
গত ১৫ জুন দুপুরে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিনিধি দলের সাথে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। একই অনুষ্ঠান শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় চীনের সাথে সম্পর্কে কিছুটা ভাটা পড়লেও বর্তমানে এ সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। ভবিষ্যতে তা আরও জোরালো হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, চীন এখন আমাদের অত্যন্ত কাছের বন্ধু। চীনের সাথে সম্পর্ক আমরা আরও গভীরে নিয়ে যেতে চাই। আমাদের এই অঞ্চলের (দক্ষিণ এশিয়া) সবাই এখন চায় একসাথে কাজ করতে।
সৈয়দ আশরাফ বলেন, চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক শুরু ১৯৫৬ সালে। তখন মওলানা ভাসানী এবং বঙ্গবন্ধু আওয়ামী লীগের দায়িত্বে ছিলেন। মধ্যখানে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ঝামেলা শুরু হয়। তারপর সেখান থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে এখন সম্পর্ক গভীর করার চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, এ সম্পর্ক শুধু রাজনৈতিক ক্ষেত্রে নয়, সামাজিক, সাংস্কৃতিকসহ অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেও জোরদার করা হচ্ছে। এ সময় সৈয়দ আশরাফ বলেন, চীনের নেতৃত্বাধীন ব্রিকস ব্যাংকের অংশীদার বাংলাদেশও। প্রসঙ্গত, এই ব্যাংকের অন্য সদস্যরা হলোÑ রাশিয়া, ব্রাজিল, সাউথ আফ্রিকা ও ভারত।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির সফরের পরপরই চীনা প্রতিনিধি দলের সফর প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, আপনারা মোদির কথা বলছেন। আমি যখন চীন সফরে ছিলাম তখন মোদিও চীন সফরে ছিলেন। এখন আমাদের এই অঞ্চলের (দক্ষিণ এশিয়া) সবাই চায় একসাথে কাজ করতে। সৈয়দ আশরাফ আরও বলেন, চীনের সাথে আমাদের অনেক সাংস্কৃতিক মিল রয়েছে। আমাদের দেশের পালকি, ঢেঁকি, লাঙল সে দেশেও রয়েছে।
বৈঠকে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলে আরও উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ এমপি, সম্পাদকম-লীর সদস্য ফরিদুন্নাহার লাইলী এমপি, কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপি, অসীম কুমার উকিল, এসএম কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া। অন্যদিকে চীনের ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন সিপিসির আন্তর্জাতিক বিভাগের অ্যান ইয়াংজুং, ইয়াং চ্যান, জোউ ইং সু, চেন বিন, লি ইয়াং জিঙ। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে দুই দলের সদস্যরা মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন। এর আগে সকালে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) সফররত প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বঙ্গবন্ধু ভবনে গিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে সিপিসির সদস্যরা বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের বিভিন্ন গ্যালারি পরিদর্শন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *