> স্প্যানিশ ভাষায় বঙ্গবন্ধুর ‌‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র মোড়ক উন্মোচন - বঙ্গবন্ধু শুধু একটি নাম

স্প্যানিশ ভাষায় বঙ্গবন্ধুর ‌‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র মোড়ক উন্মোচন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী পালনের অংশ হিসেবে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটির ল্যাটিন আমেরিকান সংস্করণ উন্মোচন করেছে মেক্সিকো সিটিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। দেশটির সংসদ ভবনের নিম্ন কক্ষে মেক্সিকো-বাংলাদেশ সংসদীয় ফ্রেন্ডশিপ দলের উপস্থিতিতে এই মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) মেক্সিকোর সংসদ ভবনের নিম্ন কক্ষে বইটির ল্যাটিন আমেরিকান সংস্করণ উন্মোচন করা হয়।

মেক্সিকোর বাংলাদেশ দূতাবাস জানায়, অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেক্সিকো বাংলাদেশ সংসদীয় মৈএী দলের সভাপতি, এবং মেক্সিকোর সংসদের নিম্নকক্ষের ফেডারেল ডেপুটি রোজালিন্ডা ডোমিঙ্গেজ ফ্লোরেস, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেল ডেপুটি হোসে মিগেল ডে লা ক্রুজ, মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক ফার্নান্দো গঞ্জালেস সাইফে, মেক্সিকো বাংলাদেশ সংসদীয় ফ্রেন্ডশিপ দলের অন্যান্য সদস্য, বুদ্ধিজীবী, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এবং দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে রোজালিন্ডা ডোমিঙ্গেজ ফ্লোরেস বলেন, এ ধরনের অনুষ্ঠান বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যেকার সংহতি আরও বাড়িয়ে তুলতে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে।

ফেডারেল ডেপুটি হোসে মিগেল ডে লা ক্রুজ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রশংসা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন, এই ল্যাটিন আমেরিকান সংস্করণের মাধ্যমে, মেক্সিকোর তরুণ রাজনীতিবিদরা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আরও জ্ঞান অর্জন করতে সক্ষম হবেন।

অনুষ্ঠান উপলক্ষে পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বঙ্গবন্ধু এবং মেক্সিকোর জনক মিগেল হিদালগো ই কোস্টিয়ার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই প্রকাশনা বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন ‘সোনার বাংলা’ সম্পর্কে ল্যাটিন আমেরিকার পাঠকদের জ্ঞানকে আরওে সমৃদ্ধ করবে যা সমগ্র জাতিকে শোষণমুক্ত, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও ন্যায়সঙ্গত সমাজ গঠনে অনুপ্রাণিত করেছিল।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের কিউরেটর মো. নজরুল ইসলাম খান তার ভিডিও বার্তায় আশা প্রকাশ করেন যে, এই বইটি ল্যাটিন আমেরিকার পাঠকদের এমন একটি জাতি সম্পর্কে আলোকিত করবে, যা মেক্সিকো থেকে অনেক দূরে অবস্থিত হলেও সংগ্রাম এবং নিপীড়ন, দারিদ্র্য, অবিচার থেকে মুক্ত হয়ে মর্যাদাপূর্ণ এক সমৃদ্ধ জাতি পরিণত হওয়ার আকাঙ্খার দিক থেকে যার সঙ্গে তাদের মিল রয়েছে।

মেক্সিকোর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এশিয়া প্যাসিফিক বিভাগের মহাপরিচালক ফার্নান্দো গঞ্জালেস সাইফে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীর মেক্সিকান স্প্যানিশ সংস্করণ প্রকাশের জন্য দূতাবাসের উদ্যোগে প্রশংসা করেন। এ ধরনের উদ্যোগ বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে নতুন গতির সঞ্চার করবে বলে মত প্রকাশ করেন।

রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম তার বক্তব্যে জাতির পিতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং সার্বভৌম ও স্বাধীন বাংলাদেশ বিনির্মাণে তার অপরিসীম অবদানের কথা তুলে ধরেন। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য মেক্সিকো-বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফ্রেন্ডশিপ গ্রুপের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। একইসঙ্গে আশা প্রকাশ করেন যে, মেক্সিকোর পাঠকরা বাঙালির মুক্তির সংগ্রামের সঙ্গে তাদের সংগ্রামের সাদৃশ্যতা খুঁজে পাবেন, যা বন্ধুপ্রতীম দুইটি দেশের মানুষের মধ্যে পারস্পারিক যোগাযোগকে আরও বাড়িয়ে তুলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.